1. multicare.net@gmail.com : Chattolar Alo :
বুধবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২২, ০১:২২ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
পেশায় ও মানবিকতার অগ্রসৈনিক চট্টগ্রাম এ্যম্বুলেন্স মালিক সমবায় সমিতি লিমিটেড বান্দরবাননের ৭উপজেলার মধ্যে ১০০ টি স্কুল ও কলেজের সেইফ স্পেস ও অন্যান্য উপকরণ বান্দরবানে সেনা জোনে ১১০ ব্রিগেড সিগন্যাল কোম্পানীর ৪৫ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী অনুষ্ঠিত লোহাগাড়ায় বাল্যবিবাহ নীরোধ ও করোনাকালীন সচেতনতা নিয়ে উঠান বৈঠক স্কিলস এ্যান্ড ট্রেনিং এনহ্যান্সমেন্ট প্রজেক্ট (STEP) সমাপ্ত প্রকল্প থেকে শিক্ষকদের চাকরি রাজস্বখাতে  স্থানান্তর ও ১৮ মাসের বকেয়া বেতন ভাতা পরিশোধের দাবিতে মানববন্ধন” বান্দরবানে ২৪ ঘন্টায় করোনা আক্রান্ত ১৩ জন বান্দরবানে সড়ক দুর্ঘটনায় মারাত্মকভাবে আহত হয়েছে ৪ জন আগ্রাবাদে দিনে দুপুরে বিকাশের দোকানে ডাকাতের হানা, একলক্ষ ত্রিশহাজার টাকা লুট আলো ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে গৃহহীনদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ বান্দরবানে পৌর আওয়ামী লীগের আয়োজনে পালন করা হয়েছে স্বদেশে প্রত্যাবর্তন দিবস।

নতুন প্রজন্মের কাছে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস অন্বেষন ও জ্ঞানের দুয়ার খুলে দিতে হবে – চসিক মেয়র

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ১০৯ বার পড়া হয়েছে

 

নিজস্ব প্রতিবেদক :

 

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী বলেছেন, চট্টগ্রাম বিপ্লবীদের তীর্থ স্থান। অনেক প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক আন্দোলনের সূচনা এ চট্টগ্রাম থেকেই শুরু হয়েছে। ঐতিহাসিক ছয় দফা ঘোষণা এবং মহান মুক্তিযুদ্ধসহ অনেক কালজয়ী ঘটনা সংগঠিত হয়েছিল এখানে। এসব ঐতিহ্যবাহী স্থান শনাক্ত করে সংরক্ষণের মাধ্যমে নতুন প্রজন্মের কাছে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস অন্বেষন ও জ্ঞানের দুয়ার খুলে দিতে হবে। নগরীর যেসব স্থানে মুক্তিযুদ্ধ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের স্মৃতিময় চিহ্ন রয়েছে তা সংরক্ষণ করে স্থাপনা ও ইতিহাস সংবলিত স্মারক স্থাপন করা হবে।

 

মেয়র শুক্রবার সন্ধ্যায় তাঁর বাসভবন চত্বরে মুক্তিযোদ্ধা সমন্বয় পরিষদের সাথে মতবিনিময়কালে এসব কথা বলেন।

 

যুদ্ধকালীন সময়ে ফটিকছড়ি থানা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ারুল আজিমের সভাপতিত্বে ও কাজী আবু তৈয়বের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন বীর মুক্তিযোদ্ধা মহিউদ্দিন রাশেদ, এ.কে.এম আবদুল মতিন চৌধুরী, এম.এন ইসলাম, ডা. সরফরাজ খাঁন চৌধুরী বাবুল, আবুল কাশেম চিশতী, এ.এইচ.এম জিলানী চৌধুরী, আবুল বশর, এড. মোহাম্মদ আলী, পান্টু লাল সাহা, মুনিরুল ইসলাম, নির্মল চন্দ্র নাথ, মীর কাশেম, আহমদ হোসেন, মোহাম্মদ ইউছুফ, এস.এম সেলিম, দেওয়ান মাকসুদ আহমদ, সৈয়দ মাহমুদুল হক, জাহাঙ্গীর হোসেন চৌধুরী প্রমুখ।

 

মেয়র বলেন, মুক্তিযোদ্ধাদের একত্রে আনার প্রয়াস হাতে নিয়েছি। চট্টগ্রাম জেলায় বর্তমানে মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাংগঠনিক অবস্থান নেই। তাই বৃহত্তর চট্টগ্রামের মুক্তিযোদ্ধাদের একত্রিত করে সংগঠিত করতে চাই। তিনি বলেন, স্বাধীনতা বিরোধী জামায়াত বিএনপি চক্র জনগণকে বিভ্রান্ত করছে। অন্যদিকে জঙ্গি তৎপরতাসহ দেশ ও সরকারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। এ কারণে প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের সংগঠিত করে অশুভ শক্তির চক্রান্ত রুখতে আমাদের সংগঠিত হতে হবে।

 

সভাপতির বক্তব্যে আনোয়ারুল আজিম আন্দরকিল্লাস্থ চসিকের পুরাতন ভবনে মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য একটি যোগাযোগ কেন্দ্র স্থাপন করার জন্য অনুরোধ জানান।

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

প্রযুক্তি সহায়তায় ইয়োলো হোস্ট